Home অন্যান্য আসাম থেকে ৩০ বাংলাদেশী বহিষ্কার

আসাম থেকে ৩০ বাংলাদেশী বহিষ্কার

341
0
SHARE

অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে আটক ৩০ বাংলাদেশীকে দেশে ফেরৎ পাঠিয়েছেন (বহিস্কার) ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের করিমগঞ্জের কর্মকর্তারা। তাদের বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবির হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। আসামের করিমগঞ্জ জেলা প্রশাসন বৃহস্পতিবার দুপুরে এই ৩০ বাংলাদেশী নাগরিককে সীমান্তের ওপারে জকিগঞ্জে বিজিবি-র হাতে তুলে দেয় বলে জানিয়েছে বৃটিশ বার্তা সংস্থা বিবিসি বাংলা। তাদের রিপোর্টে এ-ও বলা হয়েছেÑ ওই বাংলাদশীরা গত বেশ ক’মাস ধরে আসামের বিভিন্ন ডিটেনশন সেন্টারে আটক ছিলেন। আসাম পুলিশ সূত্রে বিবিসিকে জানানো হয়, ‘ডিপোর্ট’ বা বহিষ্কার করা এই তিরিশজনের সবাই অবৈধভাবে ভারতে ঢুকেছিলেন। আর সেই অপরাধে জেল খাটার পর বাংলাদেশে তাদের ঠিকানা ও পরিচয় যাচাই করে ফেরত পাঠানো হয়। বাংলাদেশের জকিগঞ্জ সার্কলের পুলিশ কর্মকর্তারা এই ডিপোর্টেশনের বিষয়টি বিবিসিকে নিশ্চিত করেছেন। আসামে এনআরসি নিয়ে বিতর্ক চলছে।
এ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে দেশটির রাজনীতিতে। বিবিসির রিপোর্ট বলছে, গত মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে আসামের সুতারকান্দি সীমান্তের চকপেস্টে ২১ জন বাংলাদেশী নাগরিককে ডিপোর্ট করা হয়েছিল। তার আড়াই মাসের মধ্যে এদিন করিমগঞ্জ থেকে ফের ৩০ বাংলাদেশীকে ফেরত পাঠানো হলো, যাদের মধ্যে ২৬ জন মুসলিম ও চারজন হিন্দু ধর্মাবলম্বী। এরা সবাই আসামের শিলচর, কোকরাঝাড়, গোয়ালপাড়া, তেজপুর বা জোড়হাটের বিভিন্ন ডিটেনশন সেন্টারে আটক ছিলেন। অবৈধভাবে ভারতে ঢোকার দায়ে দেশটির পাসপোর্ট আইনে তাদের নূন্যতম ৬ মাস মেয়াাদে জেল খাটতে হয়েছে। তারপর বাংলাদেশ উপ-দূতাবাসের মাধ্যমে বাংলাদেশে তাদের নাম-ঠিকানা যাচাই করে ডিপোর্টেশন সম্পাদিত হয় বলে বিবিসিকে জানান করিমগঞ্জ জেলার পুলিশ প্রধান মানবেন্দ্র দেবরায়। বিবিসির রিপোর্ট মতে, আসামে এখন চলছে এনআরসি-র শেষ পর্বের শুনানি ও নথিপত্র পরীক্ষার কাজ। “আমরা যেটা করি, যখনই আমরা অবৈধ বাংলাদেশীদের ধরতে পারি এবং জেরার মুখে তারা স্বীকার করে যে তাদের আসল বাড়ি বাংলাদেশে তখনই আমরা স্থানীয় বাংলাদেশ মিশন ও বিজিবি-কে জানাই। বাংলাদেশী কর্তৃপক্ষ তাদের ঠিকানা ধরে নাগরিকত্ব যাচাই করে আমাদের জানান। উভয়ে রিপোর্ট মিলে গেলে আমরা যথাযথ নিয়ম অনুসরণ করে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করি Ñ বিবিসিকে বলছিলেন করিমগঞ্জের পুলিশ সুপার। এদিকে বাংলাদেশে সিলেট ডিভিশনে জকিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: হাবিবুর রহমান হাওলাদারও বিবিসির কাছে হস্তান্তর হওয়া ৩০ বাংলাদেশীকে বুঝে নেয়ার বিষয়টি বিবিসিকে নিশ্চিত করেছেন। এদের এখন নিজ নিজ অভিভাবকদের হাতে তুলে দেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।