Home বিনোদন অবশেষে বাংলাদেশে মুক্তি পেল ‘ক্রু’

অবশেষে বাংলাদেশে মুক্তি পেল ‘ক্রু’

24
0
SHARE

প্রথমবারের মতো বলিউডের ছবি আমদানি করেছে বাংলাদেশের জনপ্রিয় মাল্টিপ্লেক্স ‘স্টার সিনেপ্লেক্স’। বলিউডের সঙ্গে একই দিনে মুক্তি না পেলেও ‍সেন্সর জটিলতা কাটিয়ে গতকাল সোমবার থেকে বাংলাদেশেও প্রদর্শিত হচ্ছে কারিনা কাপুর, টাবু ও কৃতি শ্যানন অভিনীত কমেডি ও থ্রিলার গল্পের সিনেমা ‘ক্রু’।

স্টার সিনেপ্লেক্সের কর্ণধার মাহবুব রহমান রুহেল জানান সরকারি অনুমতি নিয়ে বলিউডের ‘ক্রু’ সিনেমা আমরা নিয়ে এসেছি। সাফটা চুক্তিতে বিনিময়ে আমরা ‘ঢাকা ড্রিম’ সিনেমাটি দিয়েছি।’

উপমহাদেশীয় সিনেমা আমদানির ক্ষেত্রে কিছু শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছিল। যেখানে আমদানি করা সিনেমাগুলো দুই ঈদ ও দুর্গাপূজার সপ্তাহে বাংলাদেশের কোনো প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা যাবে না।

সেই নিয়ম মেনেই ‘ক্রু’ চালাবেন জানিয়ে সংশ্লিষ্টরা বলেন, ‘আমরা ক্রু ঈদের সময় চালাবো না। এই ছবিটা চলবে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত। তারপর ঈদের সময় বন্ধ রাখার যে সরকারি নির্দেশনা রয়েছে, সে অনুযায়ী এক সপ্তাহ আমরা বন্ধ রাখব। ঈদে আমরা বাংলা ছবিকেই সবসময় গুরুত্ব দেই। বাংলা সিনেমাই চালাবো। ’

আসন্ন ঈদে ১৪টি সিনেমা মুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে জানিয়ে সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ বলেছে, আমরা তো এতোগুলো চালাতে পারব না। যে কয়টা সম্ভব হয় চালাবো। তবে ‘রাজকুমার’, ‘ওমর’, ‘কাজল রেখা’, ‘দেয়ালের দেশ’,‘মোনা জ্বীন-২’ এগুলো নিয়ে দর্শক আগ্রহ লক্ষ্য করছি। আমরাও এই সিনেমাগুলো নিয়ে আশাবাদী। এগুলো চালানোর পরিকল্পনা করছি।

গেল বছর বাংলাদেশে ভারতীয় চলচ্চিত্র আমদানির অনুমতি দেয় বাণিজ্য ও তথ্য মন্ত্রণালয়। তবে নির্দিষ্ট শর্তের ভিত্তিতে বছরে ১০টি হিন্দি সিনেমা আমদানি করা যাবে। গত বছর শাহরুখ খান অভিনীত ‘পাঠান’ দিয়ে শুরু হয়েছিল এই যাত্রা। এরপর ‘কিসি কা ভাই কিসি কি জান’, ‘জাওয়ান’, ‘অ্যানিম্যাল’ ও ‘ডানকি’ মুক্তি পেয়েছিল বাংলাদেশে। ছবিগুলো কমবেশি দর্শক হলে টেনেছে। ছবিগুলো আমদানি করেছে অনন্য মামুনের অ্যাকশন কাট এন্টারটেইনমেন্ট ও কিবরিয়া ফিল্মস।

‘ডানকি’র পর হিন্দি ছবি আমদানি বন্ধ ছিল, বিরতির পর এবার হিন্দি ছবি আমদানিতে এগিয়ে এসেছে স্টার সিনেপ্লেক্স।

‘ক্রু’র পরিচালক রাজেশ কৃষ্ণান। টাবু, কারিনা কাপুর ও কৃতি শ্যানন ছাড়াও ছবিতে আছেন পাঞ্জাবি অভিনেতা-গায়ক দিলজিৎ দোসাঞ্জ ও স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ান কপিল শর্মা। তিন বিমানবালাকে নিয়ে এগিয়েছে সিনেমার গল্প। কীভাবে তারা স্বর্ণের বার চুরি করে তা নিয়েই কাহিনি।